দাঁড়িয়ে আছে শরৎ শ্যামাচরণ কর্মকার

জল-চিকচিক শালুকপাতা, জল-মাখা পথ-ঘাট
একটু আগেই বৃষ্টি ছিল এখন রোদের হাট।
টাপুর টুপুর বৃষ্টি ফোঁটায় পথ-ঘাট-মাঠ ধোয়া
গাছ-গাছালি, ঘাস ও পাতায় সোনা রোদের ছোঁয়া।
রোদ ঝিকমিক, রোদ ঝিকমিক, রোদ ও আলোর সুর
দেয় সরিয়ে জল সরিয়ে নীলচে আকাশপুর।
জলের ফোঁটায় রোদের ছটা দৃশ্য বড়ই মিঠে
কাছে-দূরে সুয্যি ছড়ায় সাতটি রঙের ছিটে।
হাসছে রবি, ভাসছে ছবি, আকাশ জুড়ে নীল
ঝরছে শিশির ফিসির ফিসির, পদ্মরা ঝিলমিল।
দুচোখ খোলা ঢেউয়ের দোলা, ছড়িয়ে পড়ে কাশে
শরৎ-শরৎ গন্ধ হাওয়ায়, তার ছোঁয়া চারপাশে।
শিউলিতলায় উড়ছে ভ্রমর, ঘুরছে ছেলের দল
শরৎ খুশি দেয় ছড়িয়ে মন হল চঞ্চল!
মন মানে না, মন মানে না, মন পেতে চায় ছাড়া
বলল শরৎ — মাখতে খুশি বাইরে দু পা বাড়া।
যেই পা বাড়াই অমনি হারাই সে এক ঠিকানাতে —
শরৎ দেখি দাঁড়িয়ে আছে রঙ তুলি তার হাতে!

ছবি – সুমিত রায়

To Top